-->

কুয়ালকম অ্যানাউন্স করলো স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস প্রসেসর

snapdragon-865-plus-chipset-announced

আমরা অনেক দিন ধরে শুনে আসছি যে নিত্য-নতুন ফ্ল্যাগশিপ ফোন যেগুলো ২০২০ সালের তৃতীয় এবং চতুর্থ অর্ধে বের হবে সেগুলোতে থাকবে কুয়ালকম এর স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস প্রসেসর। 

তবে এই প্রসেসরটি আদৌ কুয়ালকম বের করবে কিনা সেটা নিয়ে একটু সন্দেহ সবার মাঝে বিরাজ করছিল। কিন্তু কুয়ালকম সবার সন্দেহ দুর করে দিয়েছে – স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস প্রসেসরটি এর সকল অস্ত্র-শস্ত্র সহ অ্যানাউন্স করে।

গত বছরের কুয়ালকম টেক সামিটে এই মোবাইল চিপ নির্মাতা স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ উন্মেষ করে সকল ফোন নির্মাতার জন্য। আর এখন যেহেতু স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস এসে পড়েছে, এটাই হবে কুয়ালকম এর নেক্সট স্টেপ।

সাধারণত কোনো প্রসেসরের প্লাস ভার্সনে সেই প্রথম প্রসেসরটি থেকে হালকা স্পিড বুস্ট এবং পারফরম্যান্স ইমপ্রুভমেন্ট থাকে। যেমন: স্ন্যাপড্রাগন ৮৫৫ থেকে স্ন্যাপড্রাগন ৮৫৫ প্লাস চিপে মিনিমাল চেঞ্জেস ছিল।

গতকাল লঞ্চ হওয়া স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস এবং অরিজিনাল স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ এর মধ্যেও সামান্য পারফরম্যান্স ইমপ্রুভমেন্ট থাকবে।

স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস চিপসেটটিতে ব্যাবহার করা হয়েছে কাইরো ৫৮৫ কোরস যার ক্লক স্পীড নির্দিষ্ট করা হয়েছে ৩.১ গিগাহার্টজ। স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ অপেক্ষা এখানে ১০% বেশি ক্লক স্পীড বাড়ানো হয়েছে।

স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস সিপিইউটির গ্রাফিক্স পারফরম্যান্স এর উপরও উন্নতি করা হয়েছে। 

কুয়ালকম বলছে এই নতুন স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ এর অ্যাড্রিনো ৬৫০ জিপিউ পূর্বের তুলনায় ১০% অধিক দ্রুত গ্রাফিক্স রেন্ডারিং প্রদান করবে। অতএব, স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস চিপটি পাওয়ার হাংরি টাস্ক যেমন গেমিং এ পূর্বের চিপ থেকে ভালো পারফর্ম করতে সক্ষম হবে।

সূত্র বলছে, আসুস এর রগ ফোন ৩ পৃথিবীর প্রথম ফোন হবে যেখানে ইউজ করা হবে এই নতুন ইমপ্রুভড মোবাইল চিপসেট। আবার লিনোভো লিজিয়ন গেমিং ফোন এর মধ্যেও এই স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস ব্যাবহার করা হবে।

তাছাড়া, স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস নতুন ফাস্ট কানেক্ট ৬৯০০ সুট এর সাপোর্ট নিয়ে আসে। যেখানে আছে – ওয়াই-ফাই ৬ই এবং ব্লুটুথ ভার্সন ৫.২। নরমাল স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ এর মধ্যে ছিল ওয়াই-ফাই ৬ এবং ব্লুটুথ ভার্সন ৫.১। 

৫জি কানেক্টিভিটি এর জন্য এই চিপসেট এর মধ্যে রেগুলার স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ এর মতো আছে কুয়ালকম এর এক্স৫৫ মডেম। এখানে কোনো পরিবর্তন করা হয়নি।

নতুন এই চিপ এর বাকি সব ফিচারস স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ এর মতো – এতেও আছে ১৪৪ হার্টজ এর ডিসপ্লে রিফ্রেশ রেট সাপোর্ট, 8K ভিডিও রেকর্ডিং এবং ৫জি সাব-৬ গিগা হার্টজ এবং এমএমওয়েভ উভয় এর সাপোর্ট।

কুয়ালকম বলেছে যে ২০২০ সালের ৩য় অর্ধ থেকে যেসব ফ্ল্যাগশিপ ফোন মার্কেটে বের হবে সেগুলোতে এই নতুন স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস প্রসেসরটি থাকবে। সুতরাং, আমরা খুব অল্প সময়ের মধ্যে এই পাওয়ারফুল চিপকে স্মার্টফোনে দেখতে পারবো।

Post a Comment

আমরা স্প্যাম ঘৃণা করি!

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো