-->

জুন মাসের ১৫টি অসাধারণ ফ্রি অ্যাপ [২০২০]

Best-Android-Apps-Of-June-2020

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় এবং ব্যাবহৃত মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম হলো অ্যান্ড্রয়েড। আর গুগল প্লেতে প্রতিদিন শত শত অ্যাপ লঞ্চ হচ্ছে। এমনকি এখন পর্যন্ত গুগল প্লে স্টোরে ৩০ লক্ষের বেশি অ্যাপ বিদ্যমান।

গুগল প্লের অ্যাপের দুনিয়া থেকে প্রয়োজনীয় অ্যাপটি খোঁজা অনেক বেশি জটিল একটা বিষয় তার পাশাপাশি সেটা সময়সাপেক্ষ। তবে চিন্তার কোনো বিষয় নেই কারণ এখানেই BDTechTimes আপনাকে সাহায্য করবে।

আমরা আজকের আর্টিকেলে দেখবো জুন মাসের ১৫টি অসাধারণ অ্যাপ যেগুলো সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ডাউনলোড করা যাবে। তো চলুন আর কথা না বাড়িয়ে দেখে নিই এই মাসের কিছু অসাধারণ অ্যাপ।


আরো পড়ুন:

জুন মাসের ১৫টি সেরা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ (২০২০)

বিঃদ্রঃ আজকের আর্টিকেলে উল্লেখিত প্রত্যেকটি অ্যাপ সরাসরি গুগল প্লে থেকে ডাউনলোড করে ইউজ করা যাবে। সুতরাং, অ্যাপগুলোর মধ্যে কোনো প্রকার ভাইরাস থাকার সম্ভাবনা খুব কম বা নেই বললেই চলে। তাছাড়া এই আর্টিকেলটাতে ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরির ভিন্ন ভিন্ন অ্যাপ আছে।  alert-success

1. Buffer: Social Media Manager

Buffer+Social+Media+Manager

আপনি কি কখনো ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম বা টুইটার এর মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জনপ্রিয় হওয়ার কথা ভেবেছেন ? যারা এইসব সাইটে তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করেছে তাদের প্রত্যেকের একজন সোশাল মিডিয়া ম্যানেজার আছে। তারা পোস্ট করে, কমেন্ট বা মেসেজের রিপ্লাই করে ইত্যাদি। 

ভাবুন আপনারও এরকম একটা পার্সোনাল সোশাল মিডিয়া ম্যানেজার থাকুক। কেমন হবে সেটা ? Buffer: Social Media Manager অ্যাপটি ঠিক এই কাজটিই করবে আপনার জন্য। 

এই অ্যাপটি হবে আপনার ব্যাক্তিগত সোশাল মিডিয়া ম্যানেজার। অ্যাপটি ইউজ করে আপনি যাবতীয় সোশাল মিডিয়া সাইট একজায়গায় ম্যানেজ করতে পারবেন। যেটা খুবই উপকারী।

অ্যাপটি ব্যাবহার করে আপনি শিডিউল পোস্ট করতে পারবেন আর ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, টুইটার, পিন্টারেস্ট ও লিংকডইনে করা পোস্টগুলোর পারফরম্যান্স দেখতে পারবেন। আপনি সোশাল মিডিয়াতে একটা সুদৃঢ় উপস্থিতিতে বজায় রাখতে পারবেন যেটা আপনার ফ্যান ফলোইং বাড়িয়ে দেবে।

তাছাড়া, আপনি যাই পোস্ট করেন না কেন সেটার সহজে বোধগম্য অ্যানালিটিকস  দেখতে পাবেন।

2. Unapp

Unapp

আপনার স্মার্টফোনে হয়তো অনেক অ্যাপ পরে রয়েছে যেগুলো আপনি ব্যবহারই করেন না। এইসব অ্যাপ এমনিতে পরে থাকলে প্রধানত দুটো ক্ষতি হয়: স্টোরেজ স্পেস কমে যায় এবং ফোন স্লো হয়ে যায়। তাই এইসব অকেজো আর অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ ফোনে রাখার কোনো মানে হয় না।

তবে একসাথে অনেকগুলো অ্যাপ আন ইনস্টল করা অনেক জটিল কাজ। আর আপনার এই কাজটি সহজ করে দেবে Unapp অ্যাপ্লিকেশনটি।

অ্যাপটি ওপেন করে শুধু আপনার যেই অ্যাপগুলো ডিলিট করা দরকার সেগুলো সিলেক্ট করতে হবে আর আনইনস্টল (Uninstall) আইকনে ক্লিক করলেই সেই সব অ্যাপ আনইনস্টল হয়ে যাবে।

অ্যাপটি ব্যাবহার করার জন্য রুট অ্যাকসেস এর কোনো প্রয়জন হবে না। তাছাড়া অ্যাপটি গুগল প্লে থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করা যাবে। অ্যাপটির একটা প্রিমিয়াম ভার্সন আছে যেখানে আপনি পাবেন ডার্ক মোড এবং অন্যান্য ফিচারস।

অতএব, অ্যাপটি অবশ্যই একবার ট্রাই করে দেখবেন।

3. Firefox ScreenshotGo

Firefox+ScreenshotGo

আমাদের সবার স্ক্রিনশট নিতে হয়। যখন আমরা কোনো আর্টিকেল পড়ি বা সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে কোনো কিছু খুঁজে পাই তখন আমরা সেটার স্ক্রিনশট নিয়ে নিই। কিন্তু অনেক সময় সেই সব স্ক্রিনশট খুঁজে পাওয়া অনেক কঠিন হয়ে পড়ে। 

তবে স্ক্রিনশট জনিত যাবতীয় সমস্যার সমাধান করার জন্যই Mozila Firefox ScreenshotGo অ্যাপটি বের হয়েছে। এই স্ক্রিনশট অ্যাপটি আপনি কিভাবে ওয়েব ব্যাবহার করেন সেটা বুঝে এবং পরবর্তীতে আপনি যখন কোনো স্ক্রিনশট নেবেন তখন আপনি সেটা যেকোনো কালেকশনে সর্ট করার সুযোগ পাবেন।

যখন আপনি অ্যাপটি ওপেন করবেন তখন এইটা আপনার স্ক্রিনশট এর কালেকশন গুলো দেখাবে আর আপনি সেগুলো সার্চও করতে পারবেন। যদি আপনার স্ক্রিনশট গুলোতে টেক্সট থাকে তাহলে আপনি সেটা কপি করতে পারবেন, কিংবা কোনো সাইটের লিংক থাকলে সেটাও ওপেন করতে পারবেন। এমনকি স্ক্রিনশটে কোনো প্রোডাক্ট থাকলে সেটা সার্চও করা যাবে।

4. Yourhour

Yourhour

আজকাল একটা সমস্যা যেটা প্রায় সবাইকে গ্রাস করেছে সেটা হলো স্মার্টফোন আসক্তি। আর আপনিও যদি জানতে চান আপনার স্মার্টফোন আসক্তি কোথায় পৌঁছে গেছে তাহলে আপনি Yourhour অ্যাপটি ব্যাবহার করতে পারেন। 

যদি ইচ্ছা শক্তি দ্বারা আপনি স্মার্টফোন আসক্তি কমাতে না পারেন তাহলে আপনাকে ডিজিটাল পদ্ধতির সাহায্য নিতে  হবে। এই অ্যাপটি আপনার ফোন আসক্তি কমিয়ে আনতে সাহায্য করবে। 

এখানে দেখতে পাবেন আপনি কতক্ষন ফোন ব্যাবহার করেছেন এবং কতবার ফোন আনলক করেছেন। সাপ্তাহিক স্মার্টফোন ইউজ এর তথ্য অ্যাপটি আপনাক দেবে একেবারে নির্ভুলভাবে।

এছাড়া অ্যাপটি আপনাকে দেখাবে কোনো অ্যাপে আপনি কতখানি সময় দিয়েছেন তাছাড়া আপনি আপনার অ্যাপ ইউসেজ নিয়ন্ত্রণ করার সুযোগও পাবেন। 

5. Overdrop

Overdrop

যারা আবহাওয়া নিয়ে অনেক বেশি চিন্তিত থাকেন তাদের জন্য আমরা এই ওয়েদার অ্যাপটি বেঁচেছি। Overdrop প্লে স্টোরে থাকা সবচেয়ে সুন্দর এবং কার্যকরী ওয়েদার অ্যাপগুলোর একটি। এই অ্যাপটি ব্যাবহার করে আপনার এলাকার আবহাওয়ার বিশদ তথ্য নির্ভুলভাবে জানতে পারবেন।

অ্যাপটি আপনাকে প্রতিনিয়ত আবহাওয়ার সম্পর্কে সতর্ক করবে এবং সামনের দিনে যদি কোনো বড়ো ঝড় কিংবা তুফান আসে তার আগাম সংকেতও আপনি পাবেন। এবং অ্যাপটি এইসব গুরুত্বপূর্ণ নোটিফিকেশন সরাসরি নোটিফিকেশন প্যানেলে দেখাবে তাই আপনি কিছুই মিস করবেন না।

Overdrop আপনাকে আরো দিবে আগামী ২৪ ঘণ্টা এবং ৭ দিনের নির্ভুল আবহাওয়া তথ্য। এবং আপনি সেটা জানতে পারবেন সুন্দর করে ডিজাইন করা তাপমাত্রা, বৃষ্টি এবং বায়ুমণ্ডলের গ্রাফ দেখে। আপনি লাইভ ওয়েদার আপডেট কাস্টোমাইজ করতে পারবেন অনেকগুলো কালার থেকে পছন্দের কালার সিলেক্ট করে। 

তাছাড়া আপনি তিনটা ওয়েদার প্রোভাইডার থেকে পছন্দেরটি বেছে নিতে পারবেন: Dark Sky, Accu Weather এবং WeatherBit

6. Wavelet

Wavelet

আমাদের মধ্যে অনেকে আছেন যারা গান শুনতে অনেক পছন্দ করেন এবং তারা এর জন্য অনেক ভালো ভালো এয়ারফোন বা হেডফোনও ক্রয় করেন। কিন্তু নতুন এয়ারফোন কেনার পর সেগুলো টিউন করা কোনো সহজ কাজ নয়। কিন্তু একজন অডিওপ্রেমির জন্য সেটা খুবই দরকারি ।

Wavelet এমন একটি অ্যাপ যেটাতে প্রত্যেক এয়ারফোন এর জন্যে প্রিসেট রয়েছে। কিছু স্মার্টফোনে প্রথম থেকেই অডিও ইকুয়ালাইজার (Equalizer) থাকে আবার অনেকগুলোতে থাকে না। যেই সব স্মার্টফোনে অডিও ইকুয়ালাইজার নেই সেগুলোতে এই অ্যাপটি দারুন কাজ করবে।

অ্যাপটির মধ্যে আছে একটি সুন্দর এবং সিম্পল ইন্টারফেস যেটা যে কেউ সহজে ব্যাবহার করতে পারবে। অ্যাপটি অধিকাংশ এয়ারফোনই সাপোর্ট করে। অ্যাপটির ফুল প্যাকেজ ফিচারস এ থাকবে– Bass Booster, Bass Tuner, Reverberation ইত্যাদি। Wavelet প্লে স্টোরে থাকা সেরা ইকুয়ালাইজার অ্যাপগুলোর একটি।

আপনার যদি গান শুনতে পছন্দ হয় তাহলে আপনি এই অ্যাপটি অবশ্যই ইনস্টল করে দেখবেন।

7. Beta Maniac

Beta+Maniac

অনেক অ্যাপ এর বেটা ভার্সন গুগল প্লে স্টোরে আছে। আপনি চাইলে সেই বেটা প্রোগ্রামে যোগ দিতে পারেন। তবে অনেক সময় এমন হয় যে আপনি যেই অ্যাপের বেটা প্রোগ্রামে জয়েন করতে চাচ্ছেন সেটা আগে থেকেই ফুল (Full) হয়ে আছে। এইরকম সমস্যার সমাধান করে দিবে এই Beta Maniac অ্যাপটি।

অ্যাপটি আপনার ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপগুলোর বেটা প্রোগ্রাম স্ক্যান করে আপনাকে বলবে কখন সেই অ্যাপটির বেটা প্রোগ্রামে জয়েন করার জন্য স্পেস খালি আছে। তাছাড়া আপনি অনেক অ্যাপের বেটা প্রোগ্রাম সম্পর্কে জানতে পারবেন যেটা আপনি পূর্বে জানতেন না।

অ্যাপটির ইউজার ইন্টারফেস অনেক বেশি সিম্পল এবং পূর্বে এতে কোনো বিজ্ঞাপন ছিল না। তবে এখন এটাতে এর ডেভেলপার কিছু বিজ্ঞাপন যোগ করেছে। আপনি ১০০ টাকা দিয়ে অ্যাপটির বিজ্ঞাপন মুক্ত ভার্সন ক্রয় করতে পারবেন। 

8. Firefox Send

Firefox+Send

আপনি কি কোনো ফাইল শেয়ারিং অ্যাপ খুঁজছেন যেটা দিয়ে আপনি অনেক দূরের কারো সাথে কোনো কিছু শেয়ার করতে পারবেন ? তাহলে আপনার জন্য Firefox Send একটি সেরা অপশন হবে। 

আপনাকে শুধু একটা ফায়ার ফক্স একাউন্ট খুলতে হবে, যেই ফাইল শেয়ার করতে চান সেটা আপলোড করতে হবে এবং ফাইলটির লিংক যার কাছে পাঠাতে চান  তার কাছে পাঠিয়ে দিতে হবে। ফায়ার ফক্স আপনার পাঠানো ফাইলের লিংক এনক্রিপ্ট করে রাখে যাতে খারাপ কেউ এটা না পেয়ে যায়।

আপনি সর্বোচ্চ ২.৫ জিবি পর্যন্ত ফাইল শেয়ার করতে পারবেন যেটা আমি মনে করি বেশিরভাগ ইউজারদের জন্য যথেষ্ট। তাছাড়া আপনার শেয়ার করা ফাইলটি কতবার ডাউনলোড করা হবে সেটা নির্ধারণ করতে পারবেন। তার পাশাপশি সেন্ড করা ফাইলটি কতক্ষন থাকবে সেটাও ঠিক করতে পারবেন।

তাছাড়া আপনি একাধিক ফাইল একসাথে পাঠাতে পারবেন যেটা কিনা একটা জিপ (Zip) ফাইল হিসেবে যাবে।

9. Abbey Music Player

Abbey+Music+Player

এখনকার সময় অনেকেই অনলাইনে মিউজিক স্ট্রিমিং করতে পছন্দ করেন। স্পটিফাই, সাউন্ড ক্লাউড এর মত অনলাইন মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিস গুলো এখন অনেক জনপ্রিয়। তবে এখনও অনেকে আছেন যারা মিউজিক ডাউনলোড করে অফলাইনে মিউজিক শুনতে পছন্দ করেন।

যদি আপনারও এরকম অফলাইনে মিউজিক শুনতে ভালো লাগে তাহলে আপনি Abbey Music Player ব্যাবহার করতে পারেন। এই মিউজিক প্লেয়ার অ্যাপটির ডিজাইন অনেক সিম্পল ও সুন্দর কারণ এখন এটাতে মেটেরিয়াল ডিজাইন যুক্ত হয়েছে। 

এর অন্যান্য ফিচারস এর মধ্যে আছে LRC সিংকড (Synched) লিরিক্স সাপোর্ট। অ্যাপটির হোমপেজ আপনাকে দেখাবে শেষ প্লে করা মিউজিক ট্র্যাকগুলো আর আপনি যেকোনো মিউজিকে লংপ্রেস করে সেই মিউজিকটি শুনতে পারবেন।

অ্যাপটি অটোমেটিক আর্টিস্ট এবং অ্যালবাম এর মেটাডাটা ডাউনলোড করে। অ্যাপটির বিল্ট-ইন থিম ইঞ্জিনে অনেক কালার কাস্টোমাইজ করার সুযোগ আছে।

10. Split Cloud

Split+Cloud

কেমন হতো যদি আপনি একসাথে দুটো মিউজিক শুনতে পারতেন! এই Split Cloud অ্যাপটি আপনাকে একত্রে দুইটি মিউজিক শুনার কাজ করে দিবে। অ্যাপটির ইউআইতে ২টি মিউজিক প্লেয়ার আছে একটা উপরে আর একটা নিচে।

নিচের মিউজিক প্লেয়ারটি আপনার এয়ারফোনে ডান দিকের এয়ারবাডে গান প্লে করবে আর উপরের মিউজিক প্লেয়ারটি বাম দিকের এয়ারবাডে গান প্লে করবে। অ্যাপটিতে গান স্ট্রিম করা যাবে সাউন্ড ক্লাউড থেকে এবং আপনি প্রায় সকল গানই এতে পেয়ে যাবেন। 

তাছাড়া, অ্যাপটি গুগল প্লে থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করা যাবে।

11. Lensa: Photo Editor

Lensa+Photo+Editor

বর্তমানে যেসকল ফোন বের হচ্ছে সেগুলোতে সেলফি ক্যামেরার কোয়ালিটি অনেক ভালো হয়। কিন্তু ক্যামেরা অ্যাপে থাকা বিউটি মোড (Beauty Mode) এর জন্য অনেক সময় সেলফি ক্যামেরা দিয়ে তোলা ছবি ভালো হয় না।

বিউটি মোড ছবিকে অনেক বেশি সফ্ট করে ফেলে আর মুখ ফর্সা করার জন্য হাইলাইটস বাড়িয়ে দেয়। তাই বিউটি মোড অফ করে ছবি তুললেই সেলফি ভালো আসে। কিন্তু সেক্ষেত্রে মুখের দাগ আর রিংকেলস (Wrinkles) অনেক স্পষ্টভাবে প্রকাশ পায়। 

আর এখানেই Lensa Photo Editor আপনাকে সাহায্য করবে। এই ফটো এডিটিং অ্যাপটি ডেভেলপ করেছে বিশ্ব সেরা প্রতিষ্ঠান Prisma Labs। এটি একটি প্রফেসনাল কোয়ালিটির পোট্রেট এডিটর যেখানে আপনি পাবেন প্রো গ্রেড সেলফি ইফেক্টস এবং ফটো রিটাচিং (Photo Retouching)।

এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যাবহার করে আপনি মুখের স্কিন পারফেক্ট করতে পারবেন এবং এর অটো এডজাস্ট ফিচারটি অটোমেটিক আপনার পোট্রেট অসাধারণ বানিয়ে দেবে। তাই এই অ্যাপটি যাদের সেলফি তুলতে অনেক ভালো লাগে তারা অবশ্যই ট্রাই (Try) করে দেখবেন।

12. Simple Habit

Simple+Habit

এবার আমরা একটা হেলথ (Health) অ্যাপ নিয়ে কথা বলবো। Simple Habit একটি অত্যন্ত ভালো হেলথ এবং স্লিপ ট্র্যাকার যেটা কিনা অনেক নামি দামি সাইকোলজিস্ট এবং হেলথ এক্সপার্টরাও রেকমেন্ড করেন। অ্যাপটিতে থাকবে গুগল এবং অন্যান্য জনপ্রিয় সাইটের মেডিটেশন এক্সপার্টদের গাইড। 

আপনি আপনার প্রগ্রেস ট্র্যাক করতে পারবেন আর নিজের কাজে ফোকাস করতে পারবেন। যারা কাজকর্ম নিয়ে ব্যাস্ত থাকেন তাদের আরামের জন্য অ্যাপটি ঘুমের পূর্বে আপনাকে গাইডে করবে যাতে আপনি শান্তিতে ঘুমাতে পারেন। 

অ্যাপটির ডেভেলপাররা আরো বলেছেন যে যখন আপনার মাথা খারাপ হয় কিংবা আপনার মেজাজ ভালো থাকে না সেই সব বিশেষ মুহূর্তের জন্যও অ্যাপটিতে বিশেষ ফিচারস আছে। এই ফিচারস গুলো আপনার দুশ্চিন্তা এবং অরুচি দুর করে দিবে!

13. Whale Papers

Whale+Papers

অ্যাপটির নাম দেখেই বুঝতে পারছেন এটি একটি ওয়ালপেপার (Wallpaper) অ্যাপ। তবে এটি কোনো সাধারণ ওয়ালপেপার অ্যাপ নয়। এটি মিনিমালিসম ওয়ালপেপারকে নিয়ে যায় এক নতুন মাত্রায়। 

অ্যাপটির ইউজার ইন্টারফেস অনেক সহজে আয়ত্তে চলে আসবে এবং এর ওয়ালপেপার কালেকশন আপনাকে অবশ্যই আকর্ষণ করবে। অনেকগুলো ক্যাটাগরির ওয়াল পেপার থেকে আপনি সিলেক্ট করতে পারবেন যেমন: Material, Pattern, Illustration, Amoled ইত্যাদি।

আপনি আপনার প্রিয় ওয়ালপেপার গুলো হোমস্ক্রিন বা লকস্ক্রিনে লাগানোর পাশাপশি সেগুলো ফেভারিট সেকশনেও অ্যাড করতে পারবেন। সবচেয়ে ভালো হলো অ্যাপটিতে কোনো বিজ্ঞাপন নেই। এর জন্যই অ্যাপটিকে আমরা জুন মাসের সেরা অ্যাপগুলোর মধ্যে রেখেছি।

14. DolbyOn

DolbyOn

যারা ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করেন তাদের কাছে অডিও কোয়ালিটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ হয়। আর আমাদের জুন মাসের সেরা অ্যাপের লিস্টে আমরা একটা অডিও রেকর্ডার রেখেছি। তবে এই অ্যাপটি যে শুধু অডিও রেকর্ড করে তা নয় ভিডিও রেকর্ডও করতে পারে।

অ্যাপটিতে অডিও টিউন করার জন্য থাকবে Noise Reduction, Dynamic EQ, Stereo Widening, Compression, De-Essing, Volume Maximization, Normalization এবং Easy Fades এর মত ফিচারস।

অ্যাপটি অডিও রেকর্ড করার পূর্বে ৩ সেকেন্ড সময় নেয় যাতে এটি আপনার রুমের পরিবেশ সম্পর্কে একটা ধারণা নিতে পারে এবং সেই অনুযায়ী সব সেটিংস অ্যাডজাস্ট করে। আপনি অডিও রেকর্ড করে সেটা এডিটও করতে পারেন।

অ্যাপটির ইউআই অনেক সুন্দর এবং মাত্র এক ক্লিকে আপনি রেকর্ডিং চালু করতে পারবেন। তাছাড়া, আপনি অ্যাপটি ইউজ করে লাইভেও আসতে পারেন এবং রেকর্ডিং সরাসরি DolbyOn থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করতে পারবেন।

15. Big File Cleaner

Big+File+Cleaner

সাম্প্রতিক সময়ে যেসব ফোন লঞ্চ হচ্ছে সেগুলোর মধ্যে ৬৪ জিবি স্টোরেজ সাধারণভাবে থাকে। তবে অনেক বেশি 4K ভিডিও রেকর্ডিং এবং বড়ো সাইজের গেম রাখার ফলে ৬৪ জিবি স্টোরেজ অনেক সময় কম হয়ে যায়। 

তার চেয়ে খারাপ অবস্থা তাদের হয় যাদের ফোন ৩২ জিবি বা তার চেয়ে কম স্টোরেজ স্পেস আছে।

Big File Cleaner অ্যাপটির নামেই আছে এটি বড়ো ফাইল ক্লিয়ার করে। অ্যাপটির সিম্পল ইউজার ইন্টারফেস আপনাকে দেখাবে কোন ফাইলগুলো আপনার ফোনে সবচেয়ে বেশি স্টোরেজ নিচ্ছে। আর আপনি সেগুলো ডিলিট করতে পারবেন।

অ্যাপটি ইউজ করলে আপনি দেখতে পাবেন কোন টাইপের ফাইল আপনার স্টোরেজ খাচ্ছে। সেটাকি ভিডিও, মিউজিক, ফটো বা অন্য কোনো অ্যাপ। নতুন কোনো এপিকে ফাইল থাকলে সেটা আপনি নিউ ফাইলস সেকশনে দেখতে পারবেন। 

তাছাড়া অ্যাপটির এক্সটেনশন ট্যাবে mp4, mkv, iso, bin, obb, zip, apk, har ,avi ইত্যাদি ফাইল এক্সটেনশন কত স্পেস নিয়েছে সেটা দেখাবে। তাই আপনার ফোনের স্টোরেজ ক্লিয়ার করতে চাইলে আপনি এই অ্যাপটি ব্যাবহার করে দেখতে পারেন।

মতামত

তো এই ছিল আমাদের জুন মাসের সেরা অ্যাপের লিস্ট। এই অ্যাপগুলো আপনার কোনো না কোনো কাজে দিবে আশা করছি। আপনার যদি এই আর্টিকেলটা ভালো লাগে তাহলে আপনি এটা শেয়ার করে দিন। 

তাছাড়া আপনার এই লিস্টের কোন অ্যাপগুলো ভালো লাগলো সেটা কমেন্ট বক্সে জানাবেন। আর আপনার কি কোনো ব্যাক্তিগত ফেভারিট অ্যাপ আছে সেটাও বলবেন। সবাইকে ধন্যবাদ। আল্লাহ হাফেজ।

Post a Comment

আমরা স্প্যাম ঘৃণা করি!

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো